থাই সফেদা গাছে বেশি ফলন পেতে করণীয় | থাই সবেদা গাছে ফুল ও ফল ঝরে যাওয়ার কারণ

 থাই সফেদা অনেক সুস্বাদু এবং বিভিন্ন পুষ্টিগুনে ভরপুর একটি ফল। আপনাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা সফেদা খেতে খুব পছন্দ করেন। সফেদার বিভিন্ন ধরনের জাত রয়েছে। এর মধ্যে থাই সবেদা অন্যতম। আজ আপনাদের থাই সফেদা নিয়ে আলোচনা করব। আপনারা মনোযোগ সহকারে পোস্টটি পড়তে থাকুন। তাহলে এ বিষয়ে সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা লাভ করতে পারবেন।

 

থাই সফেদা গাছে বেশি ফলন পেতে করণীয়
 

থাই সফেদা গাছে বেশি ফলন পেতে করণীয়ঃ

বর্তমানে থাই সফেদা গাছ অত্যন্ত জনপ্রিয়। এটি মূলত থাইল্যান্ড থেকে এসেছে যার কারণে নাম হয়েছে থাই সফেদা। এটি বারোমাসি একটি ফল। এই থাই সবেদা চাষ করে অনেকেই আত্মনির্ভরশীল হচ্ছে।

এটি খেতে যেমন সুস্বাদু, ফলনও তেমনি বেশি। এটি সাইজে দেশি সফেদার চেয়ে বড় হয়ে থাকে। থাই সফেদা ফল মূলত মজাদার ও রসালো ফল। এটি দেখতে ভালো না হলেও এর পুষ্টি গুনাগুন অনেক আছে।

প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন যেটি আপনার শরীরের ক্ষেত্রে খুবই কার্যকরী। আপনি সফেদার বীজ থেকে বাড়িতে চারা তৈরি করতে পারেন। কিন্তু যদি আপনি বাড়িতে চারা তৈরি করেন। এতে ফলন খুব কম হয়ে থাকে।

আপনাকে অবশ্যই সফেদা গাছ লাগাতে গেলে কলপের চারা কিনতে হবে। কারণ কলমের চারায় প্রচুর পরিমাণ ফলন হয়ে থাকে এবং দ্রুত ফুল এবং ফল আসে। আপনি যদি ভালো ফল পেতে চান তাহলে অবশ্যই ভালো কলমের চারাগাছ সংগ্রহ করে লাগাতে হবে।

তবে বর্তমানে বিভিন্ন জাতের চারা পাওয়া যায়। আপনাকে থাই সফেদা লাগালে আপনি ফলন অনেক বেশি পাবেন। খেতেও অনেক সুস্বাদু। আপনি গাছ লাগানোর ক্ষেত্রে চারার বয়স এবং সাইজ অনুযায়ী টব নির্ধারণ করবেন।

আপনি যখন গাছটি লাগাবেন তখন আপনাকে অবশ্যই মাটিটি তৈরি করে নিতে হবে। কারণ যে মাটিতে আপনি লাগাবেন মাটিটা যদি ভাল হয় তাহলে আপনার গাছটাও দ্রুত বাড়বে। তাই মাটি তৈরির জন্য garden soil,compost,cocopeat,neem khol, সামান্য fungicide ব্যবহার করতে পারেন।

সর্বপ্রথম আপনি মাটিটা ভালো করে চেলে নিবেন। তারপর এগুলি একসাথে মিশিয়ে ভালোভাবে সফেদা গাছটি লাগাবেন। সবেদা গাছে যে জায়গায় লাগাবেন লক্ষ্য রাখবেন সেখানে রৌদ্র বেশি থাকতে হবে। কারণ রোদের স্থানে সফেদা গাছ অনেক ভালো হয়।

আপনার প্রতিদিন গাছে জল দেওয়ার প্রয়োজন নেই। তবে এটাও খেয়াল রাখবেন যেন গাছে জলের অভাব কম না হয়। গাছে জলের অভাব যদি খুবই কম থাকে তাহলে ফুল বা ফল ঝরে পড়তে পারে। আবার ফুল বা ফল না আসার ও সম্ভাবনা অনেক ক্ষেত্রে হয়ে থাকে।

চারা লাগানো দু'মাসের মধ্যে আপনাকে কোন সার প্রয়োগ না করলেই হবে। তারপর দুমাস পর আপনি বিভিন্ন সবজির খোসা জলের সাথে মিশিয়ে গাছের গোড়ায় দিতে পারেন।

হাড়গোড়া, সরিষার খইল জলের সাথে মিশিয়ে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রেখে গাছের গোড়ায় দিতে পারেন। এতে করে গাছটি অনেক সতেজ হয়ে উঠবে। আপনাকে অবশ্যই গাছের দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। অনেক সময় গাছের পাতায় ও ফুলে পোকামাকড়ের উপদ্রব দেখা যায়। তখন কীটনাশক ঔষধ প্রয়োগ করবেন।

আপনি যদি সঠিকভাবে গাছের পরিচর্যা করেন তাহলে গাছটির পাতা ফুল অনেক সুন্দর দেখাবে। অর্থাৎ গাছটি মূলত সতেজ দেখাবে। গাছটিতে ফলে ভরে উঠবে। গাছটির যখন ফুল ধরবে তখন আপনাকে গাছের অতিরিক্ত যত্ন নিতে হবে। গাছের নিয়মিত জল দিতে হবে। এর সাথে আপনাকে গাছে অতিরিক্ত ভিটামিন দিতে হবে।

অনেক সময় এমনও দেখা যায় গাছের শিকড় মাটির উপরে চলে এসেছে। তখন আপনার করণীয় শিকড় গুলির উপরে মাটি দিয়ে ঢেকে দেওয়া এবং গাছটিতে আরো পরিমাণ মাটি দিয়ে গাছের গোড়া উঁচু করে দেওয়া। কারণ শিকড় যদি বাইরে বেরিয়ে আসে তাহলে গাছটির আস্তে আস্তে হেলে  যাওয়া সম্ভাবনা থাকে এবং গাছটির সতেজতা নষ্ট হবে।

তাই এদিকটা আপনারা লক্ষ্য রাখবেন। এই সকল কারনেও গাছে ফুল আসার সম্ভাবনা কমে যায়। আবার এমনও হয়ে থাকে গাছে ফুল ধরেছে কিন্তু পরবর্তীতে ফুল ঝরে যাওয়ার প্রবণতা বেশি থাকে। এ বিষয়গুলো অবশ্যই আপনাকে লক্ষ্য রেখে গাছের যত্ন নিতে হবে তাহলে গাছটি ফুলে ফলে ভরে উঠবে।




পরিশেষে বলা যায়, আপনি যদি সঠিকভাবে থাই সফেদা গাছের পরিচর্যা করতে পারেন। তাহলে প্রচুর পরিমাণে ফুল এবং ফল আসবে। এতে করে আপনারে নিজের কাছে অনেক ভালো লাগবে। তাছাড়া আপনিও আর্থিকভাবে লাভবান হতে পারবেন। অনেকে সফেদা গাছের চাষ করেও জীবিকা নির্ভর করছে। আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছে। বাজারে ফরমালিনযুক্ত ফল কিনে খাওয়ার চেয়ে আপনি নিজেই চাষ করতে পারেন।


 আরো পড়ুন

 থাই জামরুল গাছে কলম করার সহজ উপায়

 থাই জামরুল গাছ চেনার সহজ উপায়

 

আমার সাইটে ভিজিট করার জন্য সকলকে ধন্যবাদ। আশা করি আপনারা আবারও আমার সাইটটি ভিজিট করবেন। এরকম আরো অনেক বিষয় নিয়ে আমার সাইটে আমি লিখে থাকি। আপনারা ভিজিট করলে সেগুলো দেখতে পারবেন। আশা করি আপনাদেরই উপকারে আসবে।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url